চীনা ব্যক্তির লিভারের অর্ধেক খেল মাছে থাকা পরজীবী

বিডি7ডে ডেস্ক:  চীনাদের খাদ্যাভ্যাস নিয়ে বরাবরই বিতর্ক রয়েছে। শূকর থেকে শুরু করে সাপ, বিচ্ছু, বিড়াল কুকুর-এসবই রয়েছে তাদের খাবারের তালিকায়। এমনকি বর্তমান মহামারি করোনাভাইরাসের উৎপত্তি চীনের উহান শহরের একটি বন্যপ্রাণীর মাংসের বাজার থেকে বলে অভিযোগ রয়েছে। করোনা মহামারিতে রূপ নেয়ার পর থেকে চীনে বন্যপ্রাণী বিক্রি বন্ধ হয়ে গেছে। বেইজিংসহ চীনের অনেক জায়গায় এখন বন্যপ্রাণী বিক্রির ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে চীনের প্রশাসন।

তবে দীর্ঘদিনের অভ্যাস কি আর সহজে বদলায়! এক চীনা ব্যক্তি একটি মাছ পুরোপুরি সিদ্ধ না করেই খেয়ে ফেলেছিলেন। এখন এর কঠিন ফল ভুগতে হচ্ছে তাকে। মেডিকেল রিপোর্ট বলছে, ওই অর্ধসিদ্ধ মাছে থাকা পরজীবী তার লিভারের অর্ধেকই খেয়ে ফেলেছে। জন্ম হয়েছে কিছু টিউমারের।

ওই ব্যক্তি জানিয়েছেন, স্থানীয় বাজার থেকে তিনি একটি মাছ কিনেছিলেন। মাছটি তিনি অর্ধেক সেদ্ধ অবস্থায় রান্না করে খেয়েছিলেন। তার দুদিন পর থেকেই তার পেটে অসহ্য ব্যথা শুরু হয়। এমনকি কয়েকদিনের মধ্যে তার ওজন কমতে শুরু করে। সেই সঙ্গে বমি, মাথাব্যথার মতো উপসর্গ দেখা দেয়।

এর পরপরই চিকিৎসকর শরণাপন্ন হন তিনি। তবে ওই ব্যক্তির মেডিকেল রিপোর্ট দেখে চক্ষু ছানাবড়া চিকিৎসকের। তার লিভারের ভেতর পুঁজ জাতীয় কিছু জমেছে। আর লিভারের প্রায় অর্ধেক খেয়ে ফেলেছে পরজীবী। সারা লিভারে পরজীবীর ডিম থিকথিক করছে। এমনকি বেশ কয়েকটি বড় আকারের টিউমার রয়েছে। এর পরই ওই ব্যক্তির লিভারে অস্ত্রোপচার করেন চিকিৎসকরা।

পরে ওই ব্যক্তির মেডিকেল রিপোর্ট পরীক্ষা করে দেখা যায়, অর্ধসিদ্ধ মাছের সঙ্গে থেকে যাওয়া পরজীবীরা ওই ব্যক্তির লিভারের ভেতর ডিম পাড়তে শুরু করেছিল। ফলে তার লিভারের আকার বেড়ে যাচ্ছিল অস্বাভাবিকভাবে। এমনকি তার লিভারের ভেতর টিউমার বাড়তে শুরু করে। এজন্য অসহ্য যন্ত্রণা হচ্ছিল তার।

চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, ওই ব্যক্তি যে মাছ খেয়েছিলেন তার শরীরে পরজীবীদের বাসা ছিল। সেই পরজীবী তার শরীরে গিয়ে ডিম পাড়তে শুরু করে। তবে মাংসাশী পরজীবীদের এই আচরণ দেখে অবাক হয়েছেন চিকিৎসকরা।